কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয়

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে জানাবো। অনেক ব্যাক্তি আছেন যারা মিথ্যা মামলার শিকার হয়ে থাকেন। তাই কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে তার অবশ্যই জানতে হবে। আজকের এই আর্টিকেটার মাধ্যমে আমরা কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে আপনাদের সামনে বিস্তারিত তথ্য জানাবো।

কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয়

তাহলে চলুন আর দেরি না করে আমরা কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে সঠিক তথ্য জেনে নিন। উক্ত বিষয়টি জানতে হলে আপনাকে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

সূচিপত্রঃ কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয়

কেউ মিথ্যা মামলা করলে প্রথম করণীয়

বর্তমান সময়ে চারিদিকে মারামারি হানাহানি লেগে রয়েছে এবং দিন দিন তা আগের তুলনায় অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে। এবং মারামারি সংঘর্ষ থেকে মামলার জের ধরে একজন আসামিকে শাস্তি দেওয়া হয়। এবং অনেকেই রয়েছে যারা মিথ্যা মামলায় জড়িত করে থাকে। কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে।

কারণ মামলা মনেই হয়রানির শিকার। তাই এই হয়রানি থেকে মুক্তি পেতে আপনাদের সতর্কতা অবলম্বনে কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে আমরা জানাতে এসেছি। কেউ মিথ্যা মামলা করলে প্রথম করণীয় কি হবে তা জেনে নিন।

আরো পড়ুনঃ ল্যাপটপ দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায়

কেউ যদি আপনার নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করে থাকে। তাহলে অবশ্যই আপনার প্রথম কাজ হল মামলাটি থানায় হয়েছে না আদালত হয়েছে এবং যেখানে মামলাটি হয়েছে সেখানে আপনার আইনজীবের মাধ্যমে আলোচনা করে এজাহারের কপি সংগ্রহ করা। কেউ যদি মিথ্যা মামলা করে তাহলে অবশ্যই সে এজাহারে আপনার নাম এবং আপনার বিবরণ সবকিছু দেওয়া থাকবে।

প্রথমত সেটি সংগ্রহ করে আপনার আইনজীবীর সাথে ভালোভাবে আলোচনা করুন। আপনার মামলাটি গুরুতর বা সাধারণ হলেও আপনি জামিনের জন্য নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইতে পারবেন।

আপনার জামিন যদি অযোগ্য হয় তাহলে উপযুক্ত কারণ দেখি আপনি হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন চাইতে পারবেন এবং আদালতের সময় চলাকালীন উপযুক্ত তারিখে ও সময়ে আপনাকে হাজিরা দিতে হবে। আপনি যদি হাজিরাই অনুপস্থিত থাকেন এবং  উপযুক্ত কারণ দেখাতে না পারেন তাহলে আপনার জামিন বাতিল ঘোষণা করা হবে।

হঠাৎ মিথ্যে মামলা হলে

অনেকে পারিবারিক সূত্র ধরে এবং শত্রুতার জেরে হঠাৎ কোনো ঘটনাকে কেন্দ্র করে মামলা করে বসে। আর অনেক ব্যক্তি রয়েছে আত্মীয়-স্বজনকে হুট করে সে মামলায় আসামী করে বসে। এবং আমরা যদি হঠাৎ করে মিথ্যা মামলার আসামি হয়ে পড়ি তাহলে আমাদের দুশ্চিন্তা আরও বেশি হয়ে যায়।

কিন্তু এ সময় দুশ্চিন্তা ছেড়ে আপনাকে এটা ভাবতে হবে আপনি এই মামলা থাকে কিভাবে রেহাই পাবেন। আপনি সব সময় ভাববেন আপনি দোষী নয় নির্দোষ। আদালতে যতক্ষণ পর্যন্ত না প্রমাণিত হয়েছে যে আপনি  দোষী ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি নির্দোষ।

তাইতো মিথ্যা মামলা করলে করনীয় সম্পর্কে আপনাকে আগে এজাহারের কপিটি সংগ্রহ করতে হবে। তারপর আপনার আইনজীবীর সাথে আলোচনা করতে হবে এবং দেখতে হবে আপনি জামিনের জন্য যোগ্য না অযোগ্য। অভিযোগটি যদি গুরুতর না হয় তাহলে আপনি নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইতে পারবেন।

জামিন যদি অযোগ্য হয় তাহলে অনেকেই হাইকোর্টে গিয়ে উপযুক্ত কারণ দেখিয়ে আগাম জানিয়ে থাকেন এবং আগাম জামিনের নির্দিষ্ট একটি টাইম রয়েছে এ মেয়াদের মধ্যে আপনাকে আবেদন করতে হবে। পুলিশ অভিযোগপত্র দাখিল করার আগে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ দিয়ে আপনার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা অভিযোগটি দায়ের করা হয়েছে, তা প্রমাণের চেষ্টা করতে হবে।

পুলিশ কর্মকর্তারা আপনার মামলাটির সত্যতা না পেলে আপনাকে নির্দোষ দেখিয়ে চূড়ান্ত আবেদন আদালতে পেশ করবেন।অভিযোগপত্র হয়ে গেলে আপনার মামলাটি বিচারিক আদালতে বদলি হবে। অভিযোগ গঠনের দিন আপনাকে হাজির হয়ে নতুন করে পূর্বশর্তে জামিন চাইতে হবে এবং জামিননামা সম্পাদন করতে হবে। তখন আপনি মামলা থেকে অব্যাহতির জন্য আবেদন করতে পারেন।

হঠাৎ অনেক সময় জানতে পারা যায় না যে আপনার নামে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।পুলিশ এসে আপনাকে গ্রেপ্তার করল। আপনাকে থানায় নিয়ে যাওয়ার গ্রেপ্তারের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আপনাকে আদালতে প্রেরণ করা করবে। তখন আপনার আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের আবেদন করতে হবে।

যদি রিমান্ড চায় পুলিশ, তাহলে আপনার আইনজীবীর উচিত হবে রিমান্ড বাতিলের জন্য আবেদন করা। যদি জামিন দেন আদালত, তাহলে একজন পরিচিত জামিনদারের জিম্মায় আপনার জামিননামা  কাজ সম্পাদন করতে হবে।

তথ্যঃ প্রথম আলো

কারো নামে মামলা আছে কিনা জানার উপায়

কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে ইতিমধ্যে আমরা উপরে অনেক কিছু আলোচনা করেছি। অনেক ব্যক্তি রয়েছে যাদের নামে মামলা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আপনার নামে মামলা হয়েছে কিনা আপনি কিভাবে জানতে পারবেন এ বিষয়ে আপনাদের আমরা বিস্তারিতভাবে কিছু তথ্য  জানাবো।

আপনার নামে মামলা হয়েছে কিনা এ বিষয়ে জানার কয়েকটি ধাপ রয়েছে। আপনার নামে যখন কোথাও মামলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে এবং যেখানে মারামারি হয়েছিল এবং যেখানে কোনো দুর্ঘটনা ঘটেছিল সেখান থেকে যদি আসামি করার সম্ভাবনা থাকে এবং আপনি যদি ভাবেন যে আমার নামে মামলা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাহলে আপনি কিভাবে জানতে পারবেন।

মামলাটা যদি থানায় হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার আত্মীয়র মাধ্যমে জানতে পারবেন আর আপনার নামে যদি থানায় মামলা হয়ে থাকে এবং এজাহার বা অভিযোগ দায়ের করা হয়ে থাকে তাহলে আপনি নিজে থানায় গিয়ে আপনার নামে মামলা হয়েছে কিনা তা জানতে পারবেন না। কারণ সেখানে আপনার অ্যারেস্ট হওয়া সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আপনার আত্মীয়-স্বজন কাউকে থানায় গিয়ে খোঁজ নিতে হবে যে আপনার নামে মামলা হয়েছে কিনা।

আরো পড়ুনঃ পরবর্তীতে দেনমোহর পরিশোধ করার বিধান

আপনার নামে যদি কোন মামলা হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে খোঁজ নিতে হবে সে মামলাটি কোন ডিসটিকের কোন থানায় পড়ছে। কারণ প্রত্যাহারটি থানা বিশেষে কোর্ট ভাগ করা হয়েছে এবং যদি মামলা হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি কিভাবে জানতে পারবেন। যদি মামলা করা হয় তাহলে তিনটা ধাপ রয়েছে একটি হল তদন্ত, একটি হল সমন এবং আরেকটি হলো ওয়ারেন্ট।

যদি কোর্ট থেকে ওয়ারেন্ট জারি করা হয় তাহলে অবশ্যই আপনার কোনো ভাবে জানা সম্ভব নয়। যে আপনার নামে কেস করা হয়েছে। আর যদি সমন দেওয়া হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই সমন আপনার বাড়ি যাবে। আপনি সমন গ্রহণ করবেন এবং সমনে নির্ধারিত সময় থাকবে এবং সে সময় তারিখে আপনাকে নির্দিষ্ট সময়ে কোর্টে যে জবাব দাখিল করতে হবে।

আপনার কোর্টে যে থানা রয়েছে এবং যে থানায় কোর্ট ভাগ করা হয়েছে আপনি সে থানায় সার্চ করলেই আপনার নামে কেস হয়েছে কিনা তা জানতে পারবেন। কিন্তু আপনার নামে কোর্টে কেস হওয়ার পরও যদি আপনার সমন না আসে তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনার বিশ্বস্ত উকিলের মাধ্যমে আলোচনা করতে পারেন আপনাকে কখন কি করতে হবে সবকিছু সে উকিল আপনাদের জানিয়ে দিবেন।

মিথ্যা মামলা করার শাস্তি

আইনের চোখে সবাই সমান। তাই কেউ যদি কারো নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করে এবং সে যদি নির্দোষ প্রমাণিত হয় তাহলে অবশ্যই সে তার ওপরে মানহানির মামলা দায়ের করতে পারে। কেউ যদি বেআইনিভাবে কাউকে কোন ফৌজদারি গুরুতর মামলায় জড়িত করে। যার শাস্তি মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা সাত বছর বা তার ঊর্ধ্বে কারাদণ্ড হতে পারে, সে ক্ষেত্রে মিথ্যা মামলাকারী বা বাদীপক্ষ সাত বছরের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

তাই কেউ যদি মিথ্যা মামলায় কাউকে জড়িত করে তাহলে অবশ্যই তার আইনের মাধ্যমে নাজ্য বিচার হবে। কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয় সম্পর্কে আগে থেকে জেনে থাকুন। কারণ বর্তমান সময়ে নানা কারণে হুটহাট করে আপনাকেও হয়তো কেউ মিথ্যা মামলায় জড়িত করতে পারে এবং যে ব্যক্তি মিথ্যা মামলা জড়িত করবেন তারও মিথ্যা মামলা জড়িত করার শাস্তি কতটা ভয়াবহ সে বিষয়ে জেনে সাবধান হন। আইন নিয়ে খেলা না করে আইনকে সম্মানের চোখে দেখুন। নিজে ভাল থাকুন, অন্যকে ভালো রাখুন।

মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তির দোয়া

বেশিরভাগ সময় আমরা মিথ্যা মামলায় জড়িত হয় এবং কেউ মিথ্যা মামলা জড়িত হলে করণীয় সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আজকের এই আর্টিকেলটি পড়লে আপনি কেউ মিথ্যা মামলা হলে করণীয় সম্পর্কে জেনে আগে থেকে সাবধান হতে পারবেন। সত্যের মৃত্যু নেই, কিন্তু অনেক সময় সত্যকে হার মানিয়ে মিথ্যা রাজ্যে জয়ী হয়ে চলছে ভন্ড অনৈতিক কর্মকান্ড সব মানুষ।

যারা মিথ্যা মামলায় অনেক অসহায় মানুষকেও দোষী বানিয়ে ফেলে এবং অনেকেরই কাছে নির্দিষ্ট প্রমাণ না থাকায় বিনা কারণে জেল খেটে থাকেন। এই মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তির জন্য অবশ্যই  আপনি আল্লাহকে স্মরণ করে যদি এই দোয়াটি আমল করেন তাহলে অবশ্যই মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। এবং সকল বিপদ আপদ থেকে রক্ষা পাবেন।

আরবিঃ لَا اِلَهَ اِلَّا اَنْتَ سُبْحَانَكَ اِنِّى كَنْتُ مِنَ الظَّالِمِيْنَ 

উচ্চারণঃ লা ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ জ্বলিমিন।

অর্থঃ হে আল্লাহ! তুমি ছাড়া কোনো সত্য উপাস্য নেই; আমি তোমার পবিত্রতা বর্ণনা করছি। নিঃসন্দেহে আমি জালিমদের অন্তর্ভুক্ত।’ {তিরমিজি} প্রিয়নবি সাঃ দুঃখ-কষ্ট, বিপদ-আপদ কিংবা দুশ্চিন্তা ও পেরেশানিতে উত্তীর্ণ হতে তাঁর উম্মতকে এ দোয়া পড়ার জন্য উৎসাহিত করেছেন

আরবিঃ حَسْبُنَا اللهُ وَنِعْمَ الْوَكِيْل – نِعْمَ الْمَوْلِى وَ نِعْمَ النَّصِيْر

উচ্চারণঃ হাসবুনাল্লাহু ওয়া নেমাল ওয়াকিল; নেমাল মাওলা ওয়া নেমান নাছির।'

অর্থঃ আল্লাহ তাআলাই আমাদের জন্য যথেষ্ট, তিনি কতই না উত্তম কাজ সম্পাদনকারী। আল্লাহ তাআলাই হচ্ছে উত্তম অভিভাবক এবং উত্তম সাহায্যকারী।

আরো পড়ুনঃ মোবাইল দিয়ে সহজে ইনকাম

আরবিঃ لَا حَوْلَ وَلَا قُوَّةَ إلَّا بِالله 

উচ্চারণঃ ‘লা হাওলা ওয়া লা কুয়্যাতা ইল্লা বিল্লাহ।'অর্থ : ‘আল্লাহর সাহায্য ব্যতিত কোনো উপায় নেই আর কোনো ক্ষমতাও নেই।’ এ দোয়াটি জান্নাতের গোপন ভাণ্ডারসমূহের একটি। বিপদ ও সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বহু মানুষ থেকে পরিক্ষীত দোয়াও এটি।

কুরআনুল কারীমে এমন অসংখ্য দোয়া  নাজিল যা মানুষের মুক্তির জন্য এবং বিপদে আপদের জন্য আল্লাহতালা নাযিল করেছেন। উক্ত এ দোয়াগুলো পড়লে অবশ্যই আল্লাহ তায়ালা আপনাকে মিথ্যা মামলা এবং আপনার ওপরে সকল বিপদ আপদ থেকে রক্ষা করবেন।

কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয়ঃ শেষ কথা

প্রিয় পাঠক গণ আজকের এই আর্টিকেলে কেউ মিথ্যা মামলা করলে করণীয়, কেউ মিথ্যা মামলা করলে প্রথম করণীয়, হঠাৎ মিথ্যে মামলা হলে, কারো নামে মামলা আছে কিনা জানার উপায়, মিথ্যা মামলা করার শাস্তি, মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তির দোয়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি আপনারা উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ ও তথ্যমূলক আর্টিকেল আরো পড়তে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ফলো করুন। কারণ আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত এ ধরনের আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

Skbd IT এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url